মুক্তাগাছায় গৃহহীনদের বাসস্থান নির্মাণের নির্ধারিত সরকারী জমি দখলের চেষ্টা- মোবাইল কোর্টের অভিযান

মুক্তাগাছা উপজেলায় গৃহহীনদের গৃহ নির্মাণের জন্য নির্ধারিত সরকারি খাস জমি দখলে নিতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে স্থানীয় একটি মহল। উপজেলার বাঁশাটি ইউনিয়নের লাঙ্গুলিয়া মৌজায় সরকারি ১নং খাস খতিয়ান ভূক্ত জমিকে দখলে নিতে সেখানে ঘর নির্মান করে ঘরের ভিতর মূর্তি রেখে কৌশলে সরকারী সম্পদ দখলের ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক আলোচনার সৃষ্ট হয়েছে।

মুক্তাগাছা উপজেলায় গৃহহীনদের গৃহ নির্মাণের জন্য নির্ধারিত সরকারি খাস জমি দখলে নিতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে স্থানীয় একটি মহল। উপজেলার বাঁশাটি ইউনিয়নের লাঙ্গুলিয়া মৌজায় সরকারি ১নং খাস খতিয়ান ভূক্ত জমিকে দখলে নিতে সেখানে ঘর নির্মান করে ঘরের ভিতর মূর্তি রেখে কৌশলে সরকারী সম্পদ দখলের ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক আলোচনার সৃষ্ট হয়েছে।

মুজিববর্ষে কেউ গৃহহীন থাকবে না প্রধানমন্ত্রীর গৃহহীনদের জন্য গৃহনির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য মুক্তাগাছা উপজেলার বাঁশাটি ইউনিয়নের লাঙ্গুলিয়া মৌজার ৫৭০৩ দাগের ১নং খতিয়ানের ১২ শতাংশ ১নং খাস খতিয়ানভূক্ত সরকারি খাস জমি প্রকল্পের জন্য নির্ধারণ করে উপজেলা ভূমি অফিস।

উপজেলা ভূমি অফিস সুত্রে জানা যায়, প্রধানমন্ত্রীর গৃহহীনদের জন্য গৃহনির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য মুক্তাগাছা উপজেলার বাঁশাটি ইউনিয়নের লাঙ্গুলিয়া মৌজার ৫৭০৩ দাগে ১২ শতাংশ জায়গা ১ নং খাস খতিয়ান ভুক্ত জমি। প্রধানমন্ত্রীর গৃহ নির্মাণ প্রকল্পের জন্য নির্ধারণ করা হয়েছে। গত শনিবার দিবাগত রাতে কে বা কারা প্রকল্পের জায়গায় নতুন করে একটি ঘর নির্মাণ করে এবং ঘরের ভেতরে একটি মূর্তি রেখে দেয়। খবর পেয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাসুদ রানা ঘটনাস্থলে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ঘরটি ভেঙ্গে দেন এবং মূর্তিটিকে পাশের একটি মন্দিরে অক্ষত অবস্থায় রেখে দেন।

এ ঘটনার পর পরই হিন্দু সম্প্রদায়ের দখলবাজ কিছু লোক উগ্রবাদী এবং সাম্প্রদায়িক আচরণ শুরু করেছেন বলে জানান সহকারী কমিশনার ভূমি ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাসুূদ রানা।

আরো দেখুন

এই সম্মন্ধীয় সংবাদ

Back to top button
Close

অ্যাডব্লক সনাক্ত

আপনার বিজ্ঞাপন ব্লকার নিষ্ক্রিয় করে আমাদের সমর্থন বিবেচনা করুন