চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগ ও পুলিশের হেল্প ডেস্ক

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে এবার স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষ ভর্তি পরীক্ষায় ৪ হাজার ৯২৬ টি আসনের বিপরীতে আবেদন জমা পড়েছে ১ লক্ষ ৬৬ হাজার ৮৭০ টি। প্রতি আসনে লড়ছে ৩৪ জন শিক্ষার্থী।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে এবার স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষ ভর্তি পরীক্ষায় ৪ হাজার ৯২৬ টি আসনের বিপরীতে আবেদন জমা পড়েছে ১ লক্ষ ৬৬ হাজার ৮৭০ টি। প্রতি আসনে লড়ছে ৩৪ জন শিক্ষার্থী।

ভর্তিচ্ছুদের সহযোগিতা করার জন্য ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থানে বসেছে হেল্পডেস্ক। বিশ্ববিদ্যালয়ের জিরোপয়েন্ট এলাকায় বসেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও শাখা ছাত্রলীগের হেল্পডেস্ক।

তাছাড়া ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের পাশেসহ কয়েকটি স্থানে রয়েছে শাখা ছাত্রলীগ ও পুলিশের হেল্পডেস্ক। এইসব হেল্পডেস্কগুলোর মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের দেয়া হচ্ছে বিভিন্ন ধরনের সহযোগিতা।বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন, পুলিশ ও ছাত্রলীগের হেল্পডেস্কের মাধ্যমে বিভিন্ন স্থানের নির্দেশনা। শিক্ষার্থীদের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র সংরক্ষণসহ কোনোকিছু হারিয়ে গেলে তার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে সহযোগিতা করছে এই হেল্পডেস্কগুলো। তাছাড়া ছাত্রলীগের হেল্পডেস্কের মাধ্যমে দিক নির্দেশনা ছাড়াও বিতরণ করা হচ্ছে খাবার পানি ও শিক্ষা সরঞ্জাম।

এমনকি ছাত্রলীগ কর্মীরা নিজেরা গিয়েও পরীক্ষাকেন্দ্র চিনিয়ে দিচ্ছেন।

তাছাড়া চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের উদ্যোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের বুদ্ধিজীবী চত্বরে ও শহীদ মিনারে ব্যবস্থা করা হয়েছে নিরাপদ পানির ব্যবস্থা।

পুলিশের হেল্পডেস্কে থাকা এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের সহযোগিতা করতে প্রশাসনের ইচ্ছায় এমন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। শিক্ষার্থীরা যেমন সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছে, তেমনি কোনো অভিযোগ থাকলে তাও তারা প্রশাসনকে জানাতে পারছে।

ভর্তি পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে শিক্ষার্থীদের সার্বক্ষণিক পাশে দাড়িয়েছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ। শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা দিতে এসে যাতে কোন ধরনের সমস্যায় না পড়ে, সেই লক্ষ্যে শিক্ষার্থীদের সহায়তা দিতে পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে ছাত্রলীগের স্বেচ্ছাসেবীরা সার্বক্ষণিক কাজ করে যাচ্ছে।

এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলোতে ভর্তিচ্ছুদের থাকার ব্যবস্থাসহ পরীক্ষা দিতে আসা শিক্ষার্থীদের মাঝে খাবার পানি সরবরাহ, কলম বিতরণসহ তাদের পরীক্ষা কেন্দ্র দেখিয়ে দেয়া ছাড়াও নানা ধরনের সহযোগিতা করছে শাখা ছাত্রলীগের কর্মীরা।

এদিকে ছাত্র সংগঠন, পুলিশ ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের হেল্পডেক্সে সহযোগিতা পেয়ে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ও অভিভাবক বলেন, হেল্পডেক্সগুলো থাকায় আমাদের অনেক সুবিধা হয়েছে। আমরা কোথায় পরীক্ষার কেন্দ্র তা চিনতে পারছিলাম না। পরে হেল্পডেক্সের সহায়তায় পরীক্ষার কেন্দ্র চিনতে সহজ হয়েছে। বসার জায়গা, শিক্ষা সামগ্রী বিতরণসহ নানামুখি সহায়তার প্রশংসা করেন তারা।

এছাড়াও হলগুলোতে রাখা হয়েছে অভিভাবকদের বিশ্রামের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা।

সূত্র- cplusbd

আরো দেখুন

এই সম্মন্ধীয় সংবাদ

Back to top button
Close

অ্যাডব্লক সনাক্ত

আপনার বিজ্ঞাপন ব্লকার নিষ্ক্রিয় করে আমাদের সমর্থন বিবেচনা করুন