মুক্তাগাছা পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ঢাকায় অবস্থান কর্মসূচী, জন দুর্ভোগ চরমে, প্রতিবাদে মানববন্ধন ও ঘেরাও

সোমবার বিকালে মুক্তাগাছা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মাহবুবুল আলম মনির নেতৃত্বে পৌরসভার পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা ও জলাবদ্ধতা হ্রাসের জন্য পৌর মেয়র ও কাউন্সিলরদের পদত্যাগের দাবীতে মানববন্ধন ও পৌর পরিষদ ঘেরাও কর্মসূচী পালন করে। এ সময় তারা পৌর ভবনের মুল ফটকে ময়লা আবর্জনা ফেলে প্রতিবাদ জানায়।

১৪ জুলাই থেকে সারাদেশের পৌরসভা কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সরকারী কোষাগার থেকে বেতন ভাতা ও পেনশনের দাবাীতে লাগাতার অবস্থান কর্মসূচী পালন করছে। এর প্রেক্ষিতে মুক্তাগাছা পৌরসভা কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও ঢাকা জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান করছে।

ফলে মুক্তাগাছা পৌর শহরের বিভিন্ন স্থানে ময়লার স্তুপ জমে আছে। এতে ছড়াচ্ছে দূর্গন্ধ। ড্রেনগুলো নিয়মিত পরিস্কার না করায় সামান্য বৃষ্টি হলেই শহরের বিভিন্ন এলাকা ডুবে যাচ্ছে পানিতে। বন্ধ রয়েছে জন্ম-মৃত্যু সনদ, নাগরিক সনদ, টিকা কর্মসূচীসহ বিভিন্ন নাগরিক সেবা। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছে পৌরবাসী। আবর্জনার গন্ধে নাক চেপে চলাচল, অন্ধকারে পথ চলাচলসহ নানা সমস্যায় পড়েছে পৌর এলাকার সাধারণ মানুষ।

মুক্তাগাছা পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ঢাকায় অবস্থান কর্মসূচী জন দুর্ভোগ চরমে, প্রতিবাদে মানববন্ধন ও ঘেরাও

এদিকে সোমবার বিকালে মুক্তাগাছা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মাহবুবুল আলম মনির নেতৃত্বে পৌরসভার পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা ও জলাবদ্ধতা হ্রাসের জন্য পৌর মেয়র ও কাউন্সিলরদের পদত্যাগের দাবীতে মানববন্ধন ও পৌর পরিষদ ঘেরাও কর্মসূচী পালন করে। এ সময় তারা পৌর ভবনের মুল ফটকে ময়লা আবর্জনা ফেলে প্রতিবাদ জানায়।

এ ব্যাপারে মুক্তাগাছা পৌরসভা মেয়র শহীদুল ইসলাম বলেন, পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা লাগাতার আন্দোলনে থাকায় বন্ধ রয়েছে জন্ম-মৃত্যু সনদ, নাগরিক সনদ, টিকা কর্মসূচীসহ বিভিন্ন নাগরিক সেবা। তবে বিশেষ ব্যবস্থায় শহরে ময়লা আবর্জনার স্তুপ পরিস্কার করা হচ্ছে। জলাবদ্ধতা নিরসনেও কাজ করা হচ্ছে।

আরো দেখুন

এই সম্মন্ধীয় সংবাদ

Back to top button
Close

অ্যাডব্লক সনাক্ত

আপনার বিজ্ঞাপন ব্লকার নিষ্ক্রিয় করে আমাদের সমর্থন বিবেচনা করুন