অধিকারকর্মী ও বিরোধীদের মৃত্যুদন্ড দিচ্ছে সৌদি আরব

বিরোধীদের দমনে পদ্ধতিগতভাবে মৃত্যুদন্ড দিচ্ছে সৌদি আরব। আন্তর্জাতিক মানবাধিকার বিষয়ক সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বলছে, গ্রেফতার হওয়া বেশ কিছু অধিকারকর্মীকে মৃত্যুদন্ড দেয়ার পরিকল্পনা করছে দেশটি।

বিরোধীদের দমনে পদ্ধতিগতভাবে মৃত্যুদন্ড দিচ্ছে সৌদি আরব। আন্তর্জাতিক মানবাধিকার বিষয়ক সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বলছে, গ্রেফতার হওয়া বেশ কিছু অধিকারকর্মীকে মৃত্যুদন্ড দেয়ার পরিকল্পনা করছে দেশটি।

কাতারভিত্তিক দৈনিক আল-শার্ক এর বরাত দিয়ে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল জানিয়েছে, সৌদির পাবলিক প্রসিকিউশন পরিকল্পনা করছে যারা মত প্রকাশের স্বাধীনতার কথা বলবে তাদেরকে বিচারের মুখোমুখি করা হবে।

অ্যামনেস্টির মতে, সৌদি আরব, মিসর, ইরাক ও ইরানে এ সংক্রান্ত বিষয়ে বিচার ও দন্ড দেয়ার ক্ষেত্রে তালিকার প্রথম সারির দেশ। দেশগুলোতে গত বছরের তুলনায় মৃত্যুদন্ড দেয়ার হার ৭৫ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে।

সৌদি আরবের পূর্বাঞ্চলীয় একটি প্রদেশের শাসন ব্যবস্থার সংস্কার চেয়ে আন্দোলন করার দায়ে চারজন অধিকারকর্মীকে মৃত্যুদন্ড দিয়েছে আদালত। আরও বেশ কয়েকজন অধিকারকর্মীর বিচার চলছে।

অধিকারকর্মীদের বিরুদ্ধে নতুন করে গ্রেফতার অভিযান শুরু করেছে সৌদি আরব। সম্প্রতি গ্রেফতার হওয়া ১৪ জন অধিকারকর্মী এখন কারাবন্দি আছেন। তাদের দুজন নারী। দুজনের মধ্যে একজন নারী অন্তসত্তা।

অধিকারকর্মীদের মধ্যে আবার দুজনের সৌদি ও যুক্তরাষ্ট্র উভয় দেশের নাগরিকত্ব আছে। বেশ নামী বিরোধী ব্যক্তি না হলেও নারী অধিকার ও অন্যান্য বিষয়ে সংস্কারের বিষয়ে সরব হয়েই তাদেরকে জেল খাটতে হচ্ছে। এসব অধিকারকর্মীর বেশিরভাগ অনলাইনে সক্রিয়।

তাদের অনেকের বিরুদ্ধে কোনো চার্জ না থকলেও গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত অধিকারকর্মীদেরকে নিজের সম্পত্তির একটা অংশ রাজতন্ত্রের কাছে অর্পন করতে হবে। তাছাড়া তাদেরকে অনেক বছর জেল খাটতে হবে বলেও জানা গেছে।

আরো দেখুন

এই সম্মন্ধীয় সংবাদ

Back to top button
Close

অ্যাডব্লক সনাক্ত

আপনার বিজ্ঞাপন ব্লকার নিষ্ক্রিয় করে আমাদের সমর্থন বিবেচনা করুন