আজকে বিএনপির মনোনয়ন পেলেন যারা

জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীদের চূড়ান্ত মনোনয়নের চিঠি দিচ্ছে বিএনপি।মঙ্গলবার বেলা পৌনে ১টার দিকে দ্বিতীয় দিনের চিঠি দেয়ার কার্যক্রম শুরু করে রাজপথের এ বিরোধী দল।

আজ যারা মনোনয়ন পেয়েছেন, তাদের মধ্যে রয়েছেন-

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু চুয়াডাঙ্গা-১ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন দুজন। তারা হলেন-শেখ মোহাম্মদ শামীম ও উকিল আবদুস সাত্তার। উকিল আবদুস সাত্তার এ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য।

কুমিল্লা-৬ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন হাজী আমিনুর রশীদ ইয়াছিন। তিনিও বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য।

বিএনপির আইনবিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল নেত্রকোনা-১ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

চট্টগ্রাম-১ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন কামাল উদ্দিন আহম্মেদ।

দলের সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ মনোনয়ন পেয়েছেন ফরিদপুর-৩ আসন।

সাবেক ছাত্রদল নেতা শহিদুল ইসলাম বাবুল ফরিদপুর-২ আসনে মনোনয়নের চিঠি পেয়েছেন।

আকতারুজ্জামান বাচ্চু ময়মনসিংহ-১০ আসনের মনোনয়ন পেয়েছেন।

মোস্তাফিজুর রহমান চট্টগ্রাম-১২ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

আবুল বাশার আকন্দ ময়মনসিংহ-২ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

রশিদুজ্জামান মিল্লাত ও আবদুল কাইয়ুম জামালপুর-১ আসনের চিঠি পেয়েছেন।

সুলতান মাহমুদ বাবু জামালপুর-২ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

রেজাউল করিম কিশোরগঞ্জ-১ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

মেহেদী আহম্মেদ রুমি ও নূরুল ইসলাম আনসার কুষ্টিয়া-৪ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

এনামুল হক চট্টগ্রাম-১২ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

সাইফুল ইসলাম ফিরোজ ঝিনাইদহ-৪ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল জামালপুর-৩ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

নুরুল ইসলাম কুষ্টিয়া-৪ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

আবদুস সালাম ঢাকা-১৩ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

আবুল বাশার আকন্দ ময়মনসিংহ-২ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

তাহসিনা রুশদির লুনা সিলেট-২ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

ফরিদুল কবির তালুকদার জামালপুর-৪ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

রেজা আহম্মেদ কুষ্টিয়া-১ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

রফিকুল ইসলাম হেলালী নেত্রকোনা-৩ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

লুৎফুর রহমান মতিন টাঙ্গাইল-৪ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

কামাল ‍উদ্দিন আহমেদ চট্টগ্রাম-১ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

তৌফিকুল ইসলাম ব্রাহ্মণবাড়িযা-৩ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

শাহ মোহাম্মদ ওয়ারেছ আলী মামুন ও সিরাজুল হক মনোনয়ন পেয়েছেন জামালপুর-৫ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

এজেডএম ফরিদুজ্জামান নড়াইল-২ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

লুৎফুর রহমান মতিন টাঙ্গাইল-৪ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

মঙ্গলবার বেলা পৌনে ১টার দিকে বিএনপি দ্বিতীয় দিনের মনোনয়নের চিঠি দেয়ার কার্যক্রম শুরু করে।

চিঠি পেতে মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকেই গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ের সামনে অপেক্ষায় ছিলেন বিএনপি নেতারা। মনোনয়নপ্রত্যাশীদের কর্মী-সমর্থকরা নিজ নিজ নেতার পক্ষে স্লোগান দিতে থাকেন।

বেলা ১১টার দিকে গুলশান কার্যালয় থেকে মাইকে ঘোষণা দিয়ে মনোনয়নপ্রত্যাশীদের অনুসারীদের কোনো ধরনের স্লোগান দিতে নিষেধ করা হয়।

বেলা ১১টা ৩৫ মিনিটের দিকে কার্যালয়ের ভেতর থেকে ঘোষণা দিয়ে বলা হয়, শিগগিরই মনোনয়নের চিঠি দেয়া হবে।

বেলা পৌনে ১টার দিকে চলের চূড়ান্ত মনোনয়নের চিঠি দেয়া শুরু হয়।

গতকাল সোমবার বিকাল থেকে মনোনয়নের চিঠি দেয়া শুরু করেছে বিএনপি। গতকাল রংপুর, রাজশাহী, বরিশাল এবং চট্টগ্রাম ও ঢাকা বিভাগের আংশিক আসনের দলের প্রার্থীদের চিঠি দেয় বিএনপি।

আজ ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট এবং সাংগঠনিক বিভাগ ফরিদপুর ও ময়মনসিংহের প্রার্থীদের চিঠি দেয়া হচ্ছে।

সকালে দুই দফা মাইকে মনোনয়ন কার্যক্রম শুরু করার ঘোষণা দেয়া হয়। কিন্তু কার্যক্রম শুরু হয় দেরি করে।

ড. কামাল হোসেনের বাসায় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুলের বৈঠকের কারণে মনোনয়নের চিঠি হস্তান্তর করতে দেরি হয়।

গতকাল বগুড়া ৬, ৭ ও ফেনী-১ আসনে দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জন্য চিঠি হস্তান্তরের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে দলীয় প্রার্থীদের হাতে চিঠি দেয়া শুরু করে বিএনপি।

কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এ কার্যক্রম চলে রাত ১২টার পরও।

অনেক আসনে দুজন প্রার্থীকে চিঠি দেয়া হয়। কোনো কোনো ক্ষেত্রে এ সংখ্যা আরও বেশি। প্রার্থীদের নামে মামলাসহ নানা কারণে কোনো আসনে যেন দলের প্রার্থী শূন্য না থাকে, সে জন্য বিকল্প প্রার্থী রাখা হচ্ছে।

বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, মাঠ জরিপ ও প্রার্থীদের অতীত কর্মকাণ্ড এবং তৃণমূল নেতাদের মত নিয়ে দলের স্থায়ী কমিটির প্রার্থীদের খসড়া তৈরি করে রাখে। মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নেয়ার সময় তালিকার খসড়া করা হয়।

খসড়া তালিকা বেশিরভাগ আসনে একাধিক প্রার্থীর নাম ছিল। ওই খসড়া থেকে প্রার্থী চূড়ান্ত করেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

কোনো কোনো আসনে একাধিক ব্যক্তিকে মনোনয়নের চিঠি দেয়া হচ্ছে। ওই সব আসনে মনোনয়ন প্রত্যাহারের আগে একক প্রার্থী দেবে বিএনপি।

কোনো কোনো আসনে দুজন রাখা হচ্ছে এ কারণে যে, আইনি জটিলতায় কারও প্রার্থিতা যদি বাতিল হয়ে যায়, তবে সেখানে যেন প্রার্থী শূন্য না থাকে।

তাই কোনো কোনো আসনে কৌশলগত কারণে একাধিক প্রার্থীকে মনোনয়নপত্র দাখিলের জন্য প্রত্যয়নপত্র দেয়া হচ্ছে। অবশ্য মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের ফরমেও প্রার্থীদের স্বাক্ষর রাখা হচ্ছে।

প্রার্থীজটের কারণে জটিলতা তৈরি হওয়া আসনগুলোর ব্যাপারে আগামী ৮ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের আগেই চূড়ান্ত করা হবে।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারাগারে থাকায় আর দলের দ্বিতীয় শীর্ষ নেতা তারেক রহমান লন্ডনে অবস্থান করায় মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মনোনয়নের চিঠিতে স্বাক্ষর করেন।

আরো দেখুন

এই সম্মন্ধীয় সংবাদ

Back to top button
Close

অ্যাডব্লক সনাক্ত

আপনার বিজ্ঞাপন ব্লকার নিষ্ক্রিয় করে আমাদের সমর্থন বিবেচনা করুন