চট্টগ্রামের পথে খালেদা জিয়াকে অভ্যর্থনা জানাতে নেতাকর্মীদের অবস্থান

চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজারের উদ্দেশে যাত্রাপথে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে অভ্যর্থনা জানাতে পথে পথে অবস্থান নিয়েছে দলের স্থানীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকরা। রাস্তার দু’পাশে নেত্রীকে এক নজর দেখতে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায় হাজারো কর্মী-সমর্থকদের। রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনের লক্ষ্যে খালেদা জিয়া ঢাকা থেকে কক্সবাজারের উদ্দেশে রওয়ানা হয়ে চট্টগ্রাম পৌঁছার আগে বিভিন্ন স্থানে নেতাকর্মী ও ভক্ত-সমর্থকরা তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজ থেকে রোববার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে বিএনপি প্রধান যখন কক্সবাজারের উদ্দেশে বের হন, তখন ওই এলাকা লোকে লোকারণ্য। অবস্থা এমন পর্যায়ে পৌঁছে যে, মানুষের ভীড়ে গাড়িবহর নিয়ে বের হওয়াই বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়। চট্টগ্রামের বিভিন্ন পথ পেরিয়ে কর্ণফুলী আমানতশাহ সেতু পর্যন্ত রাস্তার দুই পাশে হাজার হাজার মানুষ তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। মানুষের চাপে ওইসব রাস্তায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানচলাচল ব্যাহত হয়। পুরো এলাকার সবগুলো রাস্তায় অসংখ্য বাস, ট্রাকসহ যানবাহনের নীরবে জায়গায় দাঁড়িয়ে থাকা ছাড়া আর কোনো উপায় ছিল না। খালেদা জিয়াকে শুভেচ্ছা জানাতে পটিয়া হাইওয়ে মোড়ে, বাইলা পাড়া ব্রিজ, শান্তিরহাট, মনোসা বাদামতল, শাহচার আউলিয়া মাজার গেট, চন্দনাশ থানার গাছবাড়িয়া কলেজ মার্কেট, হাসিমপুর বাগিচাসহ বিভিন্ন স্পটে প্রিয় নেত্রীকে শুভেচ্ছা জানাতে ফুল নিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন নেতা-কর্মীরা।

খালেদা জিয়াকে স্বাগত জানাতে চট্টগ্রাম বিএনপি দক্ষিণ শাখার সহসভাপতি এনামুল হক এনাম নগরের বাইলা পাড়া ব্রিজ পুরোটাই ফুল দিয়ে ঢেকে দেন। ভিন্নধর্মী আয়োজনে বাড়তি রূপ দিতে এনেছেন হাতিও। অনেক স্থানে খালেদা জিয়াকে স্বাগত জানাতে স্কুল ড্রেস পরা ছোট ছোট ছেলেমেয়ারাও ফুল নিয়ে দাঁড়িয়েছেন রাস্তায়। নেতা-কর্মীদের এই বাড়তি এই উন্মাদনায় খালেদা জিয়ার গাড়িবহর যাচ্ছে ধীর গতিতে। বিএনপি নেতারা ধারণা করছেন, কক্সবাজার সার্কিট হাউজে পৌঁছাতে খালেদা জিয়ার নির্দিষ্ট সময়ের চেয়ে আরো দুই-আড়াই ঘণ্টা বেশি সময় লাগবে। সেক্ষেত্রে তিনি বিকেল ৪টার দিকে সেখানে পৌঁছাতে পারেন।

মিয়ানমারের নিধনযজ্ঞে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে দেখতে এবং তাদের ত্রাণ দিতে চারদিনের সফরে শনিবার সফরে ঢাকা ত্যাগ করেন খালেদা জিয়া। পথের মধ্যে ফেনী সার্কিট হাউজে যাত্রা বিরতি শেষে রাতে ৯টার দিকে চট্টগ্রামে পৌঁছান। চট্টগ্রামে বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মীর চাপে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে পৌঁছান রাত সাড়ে ১০টার দিকে। চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজার সার্কিট হাউজের উদ্দেশে রোববার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে গাড়িবহর নিয়ে যাত্রা শুরু করেন বিএনপি চেয়ারপারসন।

রোববার কক্সবাজার সার্কিট হাউজে বিশ্রাম নিয়ে সোমবার সকালে কক্সবাজারের উখিয়া যাবেন খালেদা জিয়া। উখিয়ার বালুখালী, বোয়ালমারা ও জামতলী রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন করবেন বিএনপি প্রধান।

আরো দেখুন

এই সম্মন্ধীয় সংবাদ

Back to top button
Close

অ্যাডব্লক সনাক্ত

আপনার বিজ্ঞাপন ব্লকার নিষ্ক্রিয় করে আমাদের সমর্থন বিবেচনা করুন