টাইগারদের ঐতিহাসিক জয়, সাকিবের দ্বিতীয় দশ

সাকিবের বলে বোল্ট ম্যাক্স ওয়েল।  প্রথম ইনিংসের পর দ্বিতীয় ইনিংসেও সাকিব পেলেন পাঁচ পেলেন। সব মিলিয়ে ক্যারিয়ারের ১৭তম পাঁচ উইকেট শিকার সাকিবের। বাংলাদেশের দেওয়া ২৬৫ রানের লক্ষ্যে ঢাকা টেস্টের চতুর্থ দিনে ব্যাট করছে সফরকারী অস্ট্রেলিয়া।

স্কোর: অস্ট্রেলিয়া দ্বিতীয় ইনিংস ২৪৪/১০। কামিন্স ২৬,হেজলিওড ০*।

বাংলাদেশ: ২৬০/১০ ও ২২১/১০।

লক্ষ্য: ২৬৫

মিরপুর টেস্টের রঙ পাল্টাতে শুরু করেছে। গেল বছরের শেষে ইংল্যান্ডকে এক সেশনে গুঁড়িয়ে দেওয়ার কথাটাও মনে পড়ে যাচ্ছে। চতুর্থ দিনের সকালের দ্বিতীয় ঘণ্টায় পরপর চার উইকেট তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ। সেঞ্চুরিয়ান ডেভিড ওয়ার্নারকে ফিরিয়ে উইকেট উদযাপন শুরু করেন সাকিব আল হাসান। দিনের চার উইকেটের তিনটিই নিয়েছেন তিনি। অস্ট্রেলিয়ার স্কোরটা এখন ৬ উইকেটে ১৯২। টার্গেট তাদের ২৬৫। এখনো পথ অনেক দূর। ২ উইকেটে ১৫৮ রান থেকে তারা হয়ে গেছে ১৯২ রানে ৬ উইকেট হারানো দল। সেঞ্চুরিয়ান ডেভিড ওয়ার্নারকে লেগ বিফোর উইকেটের ফাঁদে ফেলেন সাকিব। অস্ট্রেলিয়ার রান তখন ১৫৮। এরপর স্টিভ স্মিথকেও ফেরান সাকিব (৩৭)। মুশফিকুর রহীমের হাতে ক্যাচে পরিণত হন অজি অধিনায়ক। তাইজুল ইসলামের বলে সৌম্য সরকারের হাতে ক্যাচ হয়েছেন পিটার হ্যান্ডসকম্বও (১৫)। এরপর ম্যাথু ওয়েডকে ফিরিয়েছেন সাকিব। আগের ইনিংসে ৫ উইকেট। এবার হয়ে গেলো আরো চারটি। আগের বিকেলে একটি নিয়েছেন। মিরপুরে টাইগারদের হাতের মুঠো থেকে ম্যাচ বেরিয়ে যেতে যেতে হঠাৎই নাটকীয় মোড় ম্যাচে। সামনে থেকে যেখানে নেতৃত্ব দিচ্ছেন সাকিব।

তবে মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে সকালে মনে হচ্ছিল এই ম্যাচ বাগে আনা কঠিন। আগের দিনে অপরাজিত ৭৫ রান নিয়ে ব্যাটিং শুরু করে বুধবার চতুর্থ দিনের সকালের শুরুতেই সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন ওয়ার্নার। ১৯তম টেস্ট সেঞ্চুরিটা পেলেন ওয়ার্নার। উপমহাদেশের মাটিতে ব্যর্থতা অন্তত কিছুটা ঘুচলো তার। তবে সেটি বাংলাদেশকে পুড়িয়ে। ১৩৫ বলেই এই উইকেটে ১১২ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেছেন ওয়ার্নার। ১৬টি চার ও একটি ছক্কা মেরেছেন। আর স্মিথ ফিরেছেন ৩৭ রান করে।

অধিনায়ক ও সহ-অধিনায়কের জুটির শুরুটা আগের বিকেলে। ওয়ার্নার ৭৫ ও স্মিথ ২৫ রানে ছিলেন। সকাল থেকেই তাদের জ্বালায় অস্থির বাংলাদেশের বোলাররা। হতাশা চেপে ধরতে থাকে। কিন্তু সাকিব আছেন না! ওয়ার্নারকে বিদায় করে উৎসবে মাতিয়ে তোলেন মিরপুরকে। ১৩০ রানের তৃতীয় উইকেট জুটিটা ভাঙে। এর কিছুক্ষণের মধ্যে স্পিনে আরো বিপজ্জনক স্মিথকে শিকার করে ফেলেন সাকিবই। যা হচ্ছে তাতে মিরপুরে গত বছর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে যা ঘটেছিল তার আভাস মিলছে।

আরো দেখুন
Close

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker