গাজীপুরে বয়লার বিস্ফোরণে নিহত ১০ : ৬ লাশ হস্তান্তর

গাজীপুরে নিহতদের মধ্যে ছয়জনের লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করেছে জেলা প্রশাসন। সোমবার রাতে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের কাশিমপুরের নয়াপাড়া এলাকায় মাল্টি ফ্যাবস লিমিটেড পোশাক কারখানায় এ বিস্ফোরনের ঘটনাটি ঘটে।

এদিকে মঙ্গলবার সকালে আরো এক জনের (পুরুষ) মরদেহ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। লাশ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন কালিয়াকৈর ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার অপূর্ব বল। তবে তার নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি।

এ নিয়ে ওই বয়লার বিস্ফোরণের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১০ জন। নিহতরা সবাই পুরুষ। এ ছাড়া আহত হয়েছেন অন্তত অর্ধশত।

নিহতদের মধ্যে আটজনের লাশ রাতে গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আনা হয়। অপরজনের মৃত্যু হয় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। তার লাশ ঢামেক মর্গে রয়েছে।

শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আনা নিহতরা হলেন- মাগুরার শালিখা থানার গোবরা গ্রামের আইয়ুর আলী সর্দারের ছেলে কারখানার ফায়ারম্যান আল আমিন হোসেন, বাক্ষণবাড়িয়ার নাসিরনগর থানার কুন্ডা গ্রামের সাগর আলী মীরের ছেলে কারখানার সহকারি ইঞ্জিনিয়ার মুজিবুর রহমান, রাজবাড়ির গোয়ালন্দ থানার চরকাসনন্দ এলাকার মনিন্দ্র নাথের ছেলে বিপ্লব চন্দ্র শীল, বগুড়ার সোনাতলা থানার নামাজখালি গ্রামের শাহার আলীর ছেলে কারখানার বয়লার অপারেটর মাহবুবুর রহমান, চট্টগ্রামের মীরসরাই থানার ববনসুন্দর গ্রামের কারখানার বয়লার ইনচার্জ আব্দুস ছালাম, চাঁদপুরের সদরের মদনা গ্রামের বাচ্চু ছৈয়ালের ছেলে গিয়াস উদ্দিন ছৈয়াল।

গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মাহমুদ হাসান জানান, এ ছয়জনের লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ছাড়া আর দুইজনের নাম পাওয়া গেছে। এরা হলেন- এরশাদ ও মনসুর। তাদের বিস্তারিত পরিচয় পাওয়া যায়নি।

এদিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই বাচ্চু মিয়া জানান, ওই দুর্ঘটনায় সোমবার রাতে এ হাসপাতালে সোলাইমান (৩০) মারা যান। তিনি বগুড়ার গাবতলী থানার মরিয়া গ্রামের মৃত লিয়াকত আলীর ছেলে।

সোমবার রাত সোয়া ৭টার দিকে নয়াপাড়া এলাকায় মাল্টি ফ্যাবস লিমিটেড পোশাক কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণ হয়।

আরো দেখুন

এই সম্মন্ধীয় সংবাদ

Back to top button
Close

অ্যাডব্লক সনাক্ত

আপনার বিজ্ঞাপন ব্লকার নিষ্ক্রিয় করে আমাদের সমর্থন বিবেচনা করুন