আপন জুয়েলার্সে অভিযান

রাজধানীর বনানীর একটি হোটেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই ছাত্রীকে ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি সাফাত আহমেদের বাবার মালিকানাধীন আপন জুয়েলার্সের বিভিন্ন শোরুমে অভিযান চালাচ্ছে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর। রোববার রাজধানীর গুলশান, উত্তরা, মৌচাক, সীমান্ত স্কয়ারসহ কয়েকটি শোরুমে অভিযান চালানো হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর মহাপরিচালক ড. মইনুল খান। তিনি জানান, এরমধ্যে বন্ধ থাকায় সিলগালা করা হয়েছে সুবাস্ত টাওয়ারের শোরুম। পরে কেউ আসলে সিলগালা খুলে অভিযান চালানো হবে। আজকের অভিযানে সোনা ও ডায়মন্ডের বৈধ উৎস ও পরিশোধেযোগ্য শুল্ক-কারাদি সম্পর্কে খোঁজ নেওয়া হবে।

আপন জুয়েলার্সে অভিযান
আপন জুয়েলার্সে অভিযান

ছাত্রী ধর্ষণ ঘটনার পর আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদ ও তার ছেলে সাফাত আহমেদের ‘ডার্টি মানি’র তথ্য গণমাধ্যমে প্রকাশের পর শুল্ক গোয়েন্দার পক্ষ থেকে অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এর মধ্যে শুল্ক গোয়েন্দা বাংলাদেশ ব্যাংককে তাদের আর্থিক লেনদেনের যাবতীয় তথ্যাদি তলব করেছে। গত পাঁচ বছরে দেশে কোন বৈধ বাণিজ্যিক আমদানি না থাকায় প্রাথমিকভাবে শুল্ক গোয়েন্দার কাছে তাদের সোনা ও ডায়মন্ডের ব্যবসায় ‘অস্বচ্ছতা’ প্রতীয়মান হয়েছে। অভিযানে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ ভ্যাটের কর্মকর্তারা ও র‌্যাব সদস্যরা রয়েছেন।
উল্লেখ্য, গত ২৮ মার্চ বন্ধুর সঙ্গে জন্মদিনের অনুষ্ঠানে গিয়ে বনানীর ‘দ্য রেইনট্রি’ হোটেলে ধর্ষণের শিকার হন দুই বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া তরুণী। ওই ঘটনায় গত ৬ মে রাজধানীর বনানী থানায় অভিযুক্ত সাফাত আহমেদ, নাঈম আশরাফ ও সাদমান সাকিফসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন তারা। এরপর সাফাত আহমেদ ও সাদমান সাকিফকে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে সিলেট থেকে গ্রেফতার করা হয়। সাফাত ও সাদমান সিলেটে আত্মীয়ের বাসায় আত্মগোপনে ছিলেন।
বর্তমানে গ্রেফতার সাফাত ও সাদমান রিমান্ডে রয়েছে। বাকী ৩ আসামিকে এখনও গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

ছবিঃ সংগ্রহ।

আরো দেখুন

এই সম্মন্ধীয় সংবাদ

Back to top button
Close

অ্যাডব্লক সনাক্ত

আপনার বিজ্ঞাপন ব্লকার নিষ্ক্রিয় করে আমাদের সমর্থন বিবেচনা করুন