বৈশাখী উৎসব পালন করতে পারল না মেধাবী ছাত্র সিফাত

নিজস্ব প্রতিবেদক: কথা ছিল মা-বাবার সাথে বৈশাখী উৎসব পালন করবে সিফাত। সে ভাবে প্রস্তুতিও ছিল। অধীর আগ্রহে মা-বাবা অপেক্ষার প্রহর গুনছিল একমাত্র সন্তানের জন্য। স্থানীয় বন্ধুরাও অপেক্ষা করছিল তার জন্য। সারাদিন মুক্তাগাছা রাজবাড়ী, ধীরে বহে মুক্তাগাছা, কালিবাড়ী পুকুরপাড়, বৈশাখী মঞ্চ, উপজেলা পরিষদ মেলা প্রাঙ্গণ, আরকে হাইস্কুল খেলার মাঠসহ বিভিন্ন জায়গায় বেড়ানো ফুচকা খাওয়া, আরও কত কি! ধুমধামে কেটে যাবে সারাদিন। মা-বাবা আর বন্ধুদের অপেক্ষার প্রহর শেষ হওয়ার আগেই ভাগ্য বিড়ম্বনায় ঘাতকের বুলেটের আঘাতে সবকিছু শেষ হয়ে গেল সাভার সিটি ইউনিভার্সিটির মেধাবী ছাত্র সিফাত আহম্মেদের। সিফাত সাভারের বিরুলিয়া ইউনিয়নের খাগান এলাকায় অবস্থিত ঐ ইউনিভার্সিটির টেক্সটাইল বিভাগের ১১তম ব্যাচের শিক্ষার্থী এবং হাজী মকবুল হোসেন হলের ছাত্র। সে ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা উপজেলা শহরের নতুন বাজার এলাকার বাসিন্দা আব্বাসিয়া আলিয়া মাদ্রাসার শিক্ষক মো: মাহ্ফুজুর রহমান বাচ্চু এর একমাত্র পুত্র।

গত ১০ এপ্রিল সোমবার দুর্বৃত্তদের বুলেটের আঘাতে নিহত হন সিফাত। মঙ্গলবার বিকালে সিফাতের লাশ মুক্তাগাছা আনা হলে এলাকায় নামে শোকের মাতম। পুত্রশোকে পিতা-মাতা বাকরুদ্ধ হয়ে যায়। প্রতিবেশিদের জড়িয়ে ধরে আর্তনাদ করে বারবার জ্ঞান হারান তারা। নিস্তব্ধে চোখের পানি ফেলেন আত্মীয়স্বজন। পুরো এলাকা ভারি হয়ে উঠে। বাড়িতে নামে মানুষের ঢল। আজ পহেলা বৈশাখেও মা-বাবার চোখের পানি থেমে থাকেনি। বর্ষ বরণে ওর বন্ধুদের প্রতিটি মুহুর্তকাটে শোকাবহে। উল্লেখ্য এ ঘটনার মূল হোতা ও সিটি ইউনিভার্সিটির ইংরেজি বিভাগের ছাত্র সাকিব মামুন বাপ্পী (২৪), বহিরাগত সোহেল (২৮), মোশারফ (২৬) ও বিটু (২৭) কে আটক করে রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ। সিফাতের মা-বাবা, বন্ধু-বান্ধব ও এলাকাবাসী দোষিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন।

আরো দেখুন

এই সম্মন্ধীয় সংবাদ

Back to top button
Close

অ্যাডব্লক সনাক্ত

আপনার বিজ্ঞাপন ব্লকার নিষ্ক্রিয় করে আমাদের সমর্থন বিবেচনা করুন