ময়মনসিংহ শিশু ও যুব ফোরামের ৭ দফা সুপারিশে স্মারকলিপি প্রদান

ময়মনসিংহ শিশু ও যুব ফোরাম করোনা মহামারীকালীন সময়ে শিশু ও যুব কল্যাণে বাজেট বরাদ্দের জন্য ৭ দফা সুপারিশ পেশ করে স্মারকলিপি প্রদান করে।

(ফেরদৌস তাজ; স্টাফ রিপোর্টার) ময়মনসিংহ শিশু ও যুব ফোরাম করোনা মহামারীকালীন সময়ে শিশু ও যুব কল্যাণে বাজেট বরাদ্দের জন্য ৭ দফা সুপারিশ পেশ করে স্মারকলিপি প্রদান করে।

গত রবিবার ময়মনসিংহ সিটি মেয়র ইকরামুল হক টিটু’র নিকট ৭ দফা সুপারিশ পেশ করে স্মারকলিপি প্রদান করেছে ময়মনসিংহ শিশু ও যুব ফোরামের পক্ষে অপূর্ব চন্দ্র সরকার, ময়মনসিংহ যুব ফোরামের পক্ষে আফজাল হোসেন হৃদয়, সরকার ফয়সাল তানভীর এবং তানজিম তাবাসসুম তিথি।

২০২০-২০২১ অর্থ বছরের নতুন বাজেটে শিশুদের ও যুবকদের কল্যাণ বিবেচনায় রেখে
বাজেট বরাদ্দের সুপারিশ করে সংগঠনটি।

স্মারকলিপিতে উল্লেখিত সুপারিশগুলো হলো:

১. ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনে শিশুদের সুরক্ষার জন্য খাতভিত্তিক সুনির্দিষ্ট
বাজেট বরাদ্দ অব্যাহত রাখা, যা মোট বাজেটের ১০% এবং বাজেট বাস্তবায়নে
শিশুদের মতামত ও অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা । একই সাথে শিশু বাজেটের জন্য
সুনির্দিষ্ট বাজেট কোড ব্যবহার করা।

২. ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনে অবস্থিত জনগণের মাঝে কোভিড ১৯ বিষয়ক
সচেতনতা সহ বাল্যবিবাহ ও শিশুশ্রম বন্ধে সচেতনতা মূলক কার্যক্রমের ব্যবস্থা
করা যেমন-মাইকিং করে, বাংলাদেশ বেতারের মাধ্যমে, সংবাদপত্রে প্রতিবেদনের
মাধ্যমে।

৩. ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনে শিশুদের জন্য আলাদা আলাদা ডাটাবেজ
প্রনয়ণ করা যেমন- শিশুশ্রমিক, প্রতিবন্ধী শিশু এবং ঝুঁকিপূর্ণ শিশু, যেন
এখান থেকে জনগণ ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্ট এলাকার শিশুদের সার্বিক
তথ্য এবং উপাত্ত সংগ্রহ করার মাধ্যমে পিছিয়ে পড়া শিশুদের প্রকল্পে অর্šÍভুক্ত
করতে পারে।

৪. শিশুবিবাহ, শিশুশ্রম এবং শিশুর প্রতি সকল প্রকার সহিংসতা বন্ধে সুনিদিষ্ট
কার্যক্রম গ্রহণ করা ও যথাযথ বাস্তবায়ন নিশ্চিত করা সহ ময়মনসিংহ সিটি
কর্পোরেশনে একজন মনোসামাজিক পরামর্শক নিয়োগ প্রদান যেন
মানসিক আঘাত প্রাপ্ত শিশুরা পরামর্শ গ্রহণ করতে পারে।

৫. সামাজিক সুরক্ষা বেষ্টনী প্রকল্পের আওতায় শিশুশ্রমে নিয়োজিত শিশু পরিবার,

প্রতিবন্ধী ও ঝুঁকিপূর্ণ শিশু পরিবারের জন্য বরাদ্দের পরিমান বৃদ্ধি করা।

৬. কোভিড ১৯ কে বিবেচনায় রেখে এই মহামারীকালীন সময়ে স্বাস্থ্যখাতে
শিশুদের জন্য আলাদা বাজেট বরাদ্দ রাখা, যাতে করোনা মহামারীকালীন সময়ে
কোন শিশুই স্বাস্থ্যসেবা থেকে বঞ্চিত না হয়।

৭. যুবকদের জন্য প্রশিক্ষণখাতে বিশেষ বরাদ্দ রাখা এবং এই সময়ে যুবকরা যাতে
ঘরে বসে উপার্জন করতে পারে সেজন্য বিশেষ অনলাইন ট্রেনিং এর ব্যবস্থা করা।

উল্লেখ্য, ময়মনসিংহ শিশু ও যুব ফোরাম স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন হিসাবে ময়মনসিংহ সিটিতে শিশু ও যুবকদের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে।

আরো দেখুন

এই সম্মন্ধীয় সংবাদ

Back to top button
Close

অ্যাডব্লক সনাক্ত

আপনার বিজ্ঞাপন ব্লকার নিষ্ক্রিয় করে আমাদের সমর্থন বিবেচনা করুন