খাদ্যাভ্যাস বদলান

অনেকেই জানতে চান, ভুঁড়ি কি আদৌ কমানো সম্ভব!

অনেকেই জানতে চান, ভুঁড়ি কি আদৌ কমানো সম্ভব! আলাদা করে ষ্পষ্টত কোনো পরিবর্তন দেখা না গেলেও খাওয়া-দাওয়ার ওপর নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারলে ওজন কমে। তাতে অবশ্যই ভুঁড়ি কমতে বাধ্য। এর জন্য খাওয়া-দাওয়ার যে অভ্যাস (অনিয়ম) তৈরি করেছেন তা বদলানো জরুরি। প্রথমেই জানতে হবে কখন খাওয়া থামাতে হবে। আমরা সবাই পেট ভরে যাওয়ার পর খাওয়া থামাই। এটাই প্রথম ভুল। অতিরিক্ত খাবার গ্রহণের আগেই খাওয়া বন্ধ করে দিন। এবার নিশ্চয়ই প্রশ্ন জাগতে পারে, এটা আবার কীভাবে সম্ভব? কী করে বুঝবেন যে পেট ভরেছে অথচ অতিরিক্ত খাওয়া হয়নি? এই প্রেশহোল্ড কিন্তু একেকজন মানুষের একেক রকম। আবার একজন ব্যক্তির সময়বিশেষে এর তারতম্যের পরিবর্তন ঘটে। স্ট্রেস, বয়স, এক্সারসাইজ সবকিছুর ওপর ওভারইটিং প্রেশহোল্ড নির্ভর করে। শুনে একটু জটিল মনে হলেও আসলে এটা জানা খুব বেশি কঠিন কিছু নয়। এর জন্য আপনাকে কোনো রকম পরীক্ষার (হেল্থ টেস্ট) প্রয়োজন নেই। আপনি যদি ছোট ছোট মিল অল্প সময়ের ফারাকে খেতে থাকেন, তাহলে কখনই বেশি খেয়ে ফেলার ভয় থাকে না। আমাদের পেটের আয়তন ঠিক দুই হাত মুঠো করলে যেমন হয়, তেমন। ফলে এক সময় দুই মুঠোর বেশি খাবার পেট নিতে পারে না। কিন্তু আমরা বেশি খেয়ে পেটের ওপর অত্যাচার করি। ফলে পেটের খাবার নেওয়ার ক্ষমতা ক্রমশ বাড়তে থাকে। তাই তো বিশেষজ্ঞরা বরাবরই সংখ্যায় বেশি কিন্তু পরিমাণে কম খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। শরীরে যতটা খাবার গ্রহণ সম্ভব ঠিক ততটুকুই দেবেন, কিন্তু ভাগে ভাগে (ধাপে ধাপে)। অর্থাৎ ওজন কমানোর জন্য নিজের পছন্দের খাবার ছেড়ে দিতে হয় না। শুধু পরিমাণটা কমালেই যথেষ্ট। কিন্তু আমরা এখানে গন্ডগোল পাকিয়ে ফেলি। প্রথম দিকে খাবারের পরিমাণের দিকে নজর দিলেও পরে আর পেরে উঠি না। আবার এর মধ্য বিয়ে, অনুষ্ঠান ইত্যাদি হলে তো কথাই নেই। আবার বন্ধুদের সঙ্গে রেস্তোরাঁয় গেলেও পরিমাণ মতো খাওয়া সম্ভব হয় না। কিন্তু এই অজুহাতে অতিরিক্ত খাওয়া-দাওয়া একদমই উচিত নয়। তাই যখন খাবেন (যেখানেই খাবেন) মন দিয়ে খাবেন। খাবারের প্রতিটা টুকরো রেলিশ করে খান। খাবারের প্রতি মনোযোগ দিলে কখন থামতে হবে তা নিজেই বুঝতে পারবেন।

 

প্রয়োজনীয় পরামর্শ

  • খেতে বসার সময় ফোন, টিভি, কম্পিউটার ইত্যাদি বন্ধ করে রাখুন।

  • সাধারণত যে পরিমাণ ভাত, ডাল, তরকারি খান তার অর্ধেক পরিমাণ বাটিতে বেড়ে নিন। এক গ্লাস পানি পান করে খাওয়া শুরু করেন।

  • কাটা চামচ ছেড়ে হাত দিয়ে খান।

  • প্রতিটা লোকমা ভালো করে চিবিয়ে, আস্তে আস্তে খান। মুখের খাবার শেষ না হওয়া পর্যন্ত পরের লোকমা তুলবেন না (এতে বেশি খাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়)। পুরো খাবার শেষ হওয়ার পরও যদি আরেকটু খেতে ইচ্ছা করে তাহলে যে অর্ধেক পরিমাণ খাবারটা নামিয়ে রেখেছেন, সেখান থেকে সামান্য পরিমাণ খান। পুরোটা খাবেন না।

আরো দেখুন

এই সম্মন্ধীয় সংবাদ

Back to top button
Close

অ্যাডব্লক সনাক্ত

আপনার বিজ্ঞাপন ব্লকার নিষ্ক্রিয় করে আমাদের সমর্থন বিবেচনা করুন