নব-নির্বাচিত শিল্পী সমিতিকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে হবে

নানা বির্তকের পর বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নতুন কমিটি দায়িত্বভার বুঝে নিয়েছে। ভোট গণনা থেকে শুরু করে নির্বাচন ও সেটির ফলাফল নিয়ে আদালত পর্যন্ত গড়িয়েছে। জল অনেক ঘোলা হয়েছে। শিল্পী সমিতির একে অপরের প্রতি ব্যক্তিগত আক্রমণের পরও নতুন কমিটিকে নিয়ে বির্তক পিছু ছাড়ছে না।

সবশেষ শনিবার জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নবনির্বাচিত নতুন কমিটি । নব-নির্বাচিত ওই কমিটি যে ব্যানার নিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করতে গিয়েছিল, সেই ব্যানারে বঙ্গবন্ধুর নামটি ভুল বানানে লেখা হয়েছে। এতে বঙ্গবন্ধুর নাম লেখা হয়েছে ‘শেখ মুজিবর রহমান’ ।

বিষয়টি নজরে এসেছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অনেকেরই। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল বলেন, ‘এ ধরণের ভুল কখনোই মেনে নেয়া যায় না। আমি যতদূর জেনেছি, শনিবার তারা এ ধরণের ভুল করার পরও আনুষ্ঠানিকভাবে বা অনানুষ্ঠানিকভাবে শিল্পী সমিতির দায়িত্বশীল কেউ ক্ষমা বা দুঃখ প্রকাশ করেননি। এটাও এক ধরণের ধৃষ্টতা। তাদেরকে অবশ্যই এ বিষয়ে ক্ষমা চাইতে হবে, নইলে প্রয়োজনে বিষয়টি নিয়ে জল আরো ঘোলা হবে।’

ছাত্রলীগের সাবেক নেতা জয়দেব নন্দী বলেন, চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নতুন নেতারা বঙ্গবন্ধুর নামের বানানটাই ঠিক মতো জানেন না। ওদের কাছ থেকে জাতি আর কি পেতে পারে। শিল্পী সমিতির সভাপতির নাম উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘মিশা টিশাদের আমার কোনকালেই শিক্ষিত মনে হয়নি। ওদের নিয়ে কথা বলতেও রুচিতে বাঁধে।’

ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটির সহ-সভাপতি মেহেদী হাসান রনি বলেন, মিশা সওদাগর বিএনপির রাজনীতিতে জড়িত। এই কমিটি (মিশা-জায়েদ খান) বিএনপি-জামায়াতের এজেন্ডা বাস্তবায়নের জন্য কাজ করছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে বানান ইচ্ছে করেই ভুল করে তারা বঙ্গবন্ধুকে অপমান করেছে। যদি অনিচ্ছাকৃত ভুল হতো তবে অবশ্যই এতক্ষণে ক্ষমা চাইতো।

এদিকে, জাতির পিতার নামের বানানে এমন ভুলে অনেকেই নিন্দা জানিয়েছেন। তারা বলছেন, জাতির জনকের নাম প্রকাশ্যে ভুলভাবে উপস্থাপন অপরাধের পর্যায়ে পড়ে। চলচ্চিত্রের একটি দায়িত্বশীল সংগঠন কিভাবে এমন কাজ করতে পারে-এমন প্রশ্নও করছেন অনেকে।

শনিবার শ্রদ্ধা নিবেদনের সময় উপস্থিত ছিলেন নতুন কমিটির সভাপতি মিশা সওদাগর, সহ সভাপতি রিয়াজ ও নাদের খান, সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান, সাংগঠনিক সম্পাদক সুব্রত, কোষাধ্যক্ষ কমল, কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য রোজিনা, অঞ্জনা, আলীরাজ, নানা শাহ, পপি, সাইমন সাদিক, জেসমিন ও নাসরিন।

কমিটির সঙ্গে অতিথি হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন কিংবদন্তি অভিনেতা ফারুক ও অভিনেত্রী কবরী। আরো উপস্থিত ছিলেন অভিনেত্রী আনোয়ারা ও তার মেয়ে মুক্তিসহ অনেকেই।

আরো দেখুন

এই সম্মন্ধীয় সংবাদ

আরো দেখুন

Close
Back to top button
Close

অ্যাডব্লক সনাক্ত

আপনার বিজ্ঞাপন ব্লকার নিষ্ক্রিয় করে আমাদের সমর্থন বিবেচনা করুন